Youtube Marketing কি? কেন করবেন? বিস্তারিত আলোচনা

আমাদের আজকের আর্টিকেলে আমি আপনাদের সাথে 

ইউটিউব মার্কেটিং নিয়ে আপনাদের সঙ্গে বিস্তারিত

ভাবে সকল তথ্য নিয়ে আপনাদের সঙ্গে আলোচনা করব।

Youtube Marketing কি কেন করবেন বিস্তারিত আলোচনা

অনেকেই আছেন যারা ইউটিউব এর মাধ্যমে মার্কেটিং করতে চান কিন্তু কিভাবে করবেন বুজতে পারছেন না তাদের জন্যই আমাদের আজকের এই আর্টিকেলটি। তাহলে চলুন আমাদের আজকের আলোচনা শুরু করি।

ইউটিউব মার্কেটিং কি?

ইউটিউব মার্কেটিং কি (YouTube marketing) হচ্ছে বর্তমান সময়ের সব থেকে ইন্টারনেটে যেকোনো সার্ভিস অথবা যেকোনো প্রোডাক্ট এর মার্কেটিং করা কিংবা প্রচার করার সেরা ও জনপ্রিয় একটি উপায়। সত্যি কথা বলতে গেলে আসলে ইউটিউব এর মাধ্যমে মার্কেটিং করার অর্থ হচ্ছে অনলাইনের মাধ্যমে ভিডিও করে মার্কেটিং করা। 

আর তার জন্যই ইউটিউব মার্কেটিংকে বলা হয়ে থাকে ভিডিও মার্কেটিং। বর্তমান সময়ে গুগল এর পরে সব থেকে জনপ্রিয় সার্চ ইঙ্গিন হচ্ছে ইউটিউব। ইউটিউব এর ভিতরে এমন কিছু নেই যা আপনি সার্চ করলে পাবেন না। যেকোনো বিষয় নিয়ে যদি তথ্য জানতে চান তাহলে আপনি ইউটিউব এর মধ্যে যে সার্চ অপশন আছে সেখানে সার্চ করলেই পেয়ে যাবেন। 

অনেক বড় বড় কোম্পানি আছে যারা শুধু ইউটিউব এর মাধ্যমে মার্কেটিং করে তাদের কোম্পানির অনেক প্রোডাক্ট বিক্রি করছে। আবার অনেক কোম্পানি আছে যারা অন্য কোন জায়গাতে মার্কেটিং করে না শুধু ইউটিউবেই মার্কেটিং করে মানে ভিডিও মার্কেটিং আর তাতেই তারা বেশ ভাল পরিমানে একটা মুনাফা লাভ করতে পারে খুব সহজেই প্রতি মাসে অনায়াসেই।  

ইউটিউব এর মাধ্যমে মার্কেটিং কেন করবেন?

অনলাইনের মাধ্যমে মার্কেটিং করার অনেক উপায় আছে আর তার ভিতরে সব থেকে ভাল একটি উপায় হচ্ছে ইউটিউব মার্কেটিং। তাই আপনি যদি ইউটিউব এর মাধ্যমে মার্কেটিং করেন তবে আপনি অনেক কম সময়ের ভিতরেই বেশ ভাল পরিমানে আপনার কোম্পানির প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারবেন। আপনি যদি অফলাইনের মাধ্যমে মানে দোকানে বসে বিক্রি করেন তবে খুব বেশি পরিমানে প্রোডাক্ট বিক্রি করতে পারবেন না। 

কিন্তু আপনি যদি ইউটিউব এর মাধ্যমে ভিডিও মার্কেটিং করেন আপনার যে প্রোডাক্ট সেই সম্পর্কে মানুষদেরকে ভিডিও এর ভিতরে ভাল ভাবে বুজিয়ে বলেন তবে অনেকেই আছে যারা আপনার প্রোডাক্ট কিনতে আগ্রহি হবেন। কেননা বর্তমান সময়ে এখন অনেকে আগে যে প্রোডাক্ট কিনবে সেই প্রোডাক্ট সম্পর্কে আগে কিছু Review Video Youtube থেকে দেখে নেয়। তাই আপনি যদি আপনার প্রোডাক্ট নিয়ে মানুষকে ভাল ভাবে সকল কিছু বুজিয়ে বলতে পারেন। আর আপনার প্রোডাক্ট যদি ভাল হয়ে থাকে তবে অনেক মানুষেই আপনার প্রোডাক্ট কিনবে। বর্তমান Generation এর যে সকল মানুষেরা আছে বলতে গেলে তাদের মধ্যে ৯০% মানুষেই কোন কিছু কেনার আগে ইউটিউব থেকে সেই প্রোডাক্ট নিয়ে জেনে নেয়। তাই এখানে কি পরিমানে Customer রয়েছে তা তো বুজতেই পারছেন আশা করি। 

কিভাবে শিখবেন ইউটিউব মার্কেটিং? 

আপনি ইউটিউব মার্কেটিং এর কাজ ঘরে বসেই চাইলে শিখতে পারবেন। কিন্তু ঘরে বসে কিভাবে শিখবেন আপনার মনে হয়তো প্রশ্ন আসছে আসুন জেনে নেই ঘরে বসে কিভাবে শিখবেন। আপনি ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে বিভিন্ন কোর্স করতে পারেন। অনেক আছে যারা ইউটিউব মার্কেটিং এর উপরে কোর্স করিয়ে থাকেন। আপনি সেই সকল কোর্স করে চাইলে শিখতে পারেন ঘরে বসেই, অথবা আপনি চাইলে গুগল এবং ইউটিউবে সার্চ করে ও শিখতে পারেন। তবে আপনি যদি ইউটিউব থেকে ভিডিও দেখে বা গুগল থেকে শিখতে চান তাহলে একটু সময় লাগবে আর কষ্ট করে শিখতে হবে। ২ থেকে ৩ মাস সময় দিলেই আশা করি আপনি শিখতে পারবেন। 

চ্যানেল খোলাসহ বাকি কাজগুলো কিভাবে করবেন ? 

সবার আগে আপনাকে একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলতে হবে আর হ্যাঁ ইউটিউব চ্যানেল খুলতে হলে আপনার একটি জিমেইল অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে। আর হ্যাঁ ইউটিউব চ্যানেল এর নামটি দিবেন আপনার কোম্পানির নামে বা আপনার দোকানের নামে। তারপরে আপনার চ্যানেলটিকে সেটআপ করতে হবে। আপনার চ্যানেল এর মধ্যে সকল Social media profile এর লিঙ্ক দিবেন যাতে করে মানুষেরা আপনাদের সাথে খুব সহজেই Contact করতে পারে। আর এগুলো দিলে আপনার চ্যানেল দেখতেও অনেক সুন্দর লাগবে, Professional মানের মনে হবে। 

চ্যানেল খোলা হয়ে গেলে আপনাকে তারপরে ভিডিও বানানোর কাজ শুরু করতে হবে। মনে করুন, আপনি মোবাইল বিক্রি করেন এখন মোবাইল সম্পর্কে আপনার ভিডিও এর ভিতরে ভাল ভাবে বুজিয়ে বলতে হবে। মোবাইল এর সক, ফিচার নিয়ে কথা বলতে হবে। আর এমন ভাবে কথা বলবেন যাতে করে মানুষেরা বিরক্ত না হয়ে যায়। আর ভিডিও কত বড় বানাবেন সেটা আসলে আপনার উপরে নির্ভর করবে, তবে ছোট ভিডিও বানাতে পারলে সব থেকে ভাল হয় কারন ছোট ভিডিওগুলো ইউটিউব মার্কেটিং এর জন্য অনেক বেশি জনপ্রিয়। ভিডিওগুলোকে এসইও করবেন তাহলে অনেক মানুষে আপনার ভিডিও দেখবে। এরপরে ভিডিওগুলোকে ইন্টারনেট এর মাধ্যমে প্রচার করার চেষ্টা করবেন। তারপরে ইউটিউব এর Ads use করতে পারেন।   

ইউটিউব মার্কেটিং এর সুবিধাগুলো কি কি ? 

. বর্তমান যুগে এখন মানুষেরাওয়েবসাইট থেকে আর্টিকেল পড়ার থেকে ইউটিউব থেকে ভিডিও দেখে একটা জিনিস জানা অনেক বেশি পরিমানে পছন্দ করে থাকেন। ওয়েবসাইটে এর মাধ্যমে কোন কিছু জানতে হলে সেখানের লেখা পরা লাগে আর তাতে অনেক সময় লাগে আবার অনেক পড়তে ও চায় না কষ্ট করে, তাই ইউটিউবে গিয়ে ভিডিও দেখে। তাছাড়া ও ভিডিও দেখে যেকোনো একটা বিষয় সম্পর্কে যদি জানা দরকার হয় তবে সেই বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে সকল তথ্য খুব সহজেই জেনে নিতে পারে। আর এই কারণেই মূলত ইউটিউব মার্কেটিং করে অনেক সহজেই ট্রাফিক এর মধ্যে আগ্রহ তৈরি করে ফেলা যায়। 

. ভিডিও বানিয়ে যেকোনো প্রোডাক্ট কিংবা সেবা সম্পর্কে সরাসরি ভাবে দর্শকদের বৈশিষ্ট্য কিংবা ফিচার বর্ণনা করার মাধ্যমে সেই পণ্যের প্রতি তাদের অনেক সহজেই আকৃষ্ট করে ফেলা যায়। 

. ইউটিউব মার্কেটিং যদি করতে চান তবে কিন্তু আপনাদের সে রকমের ভাবে কোন অতিরিক্ত সহায়ক ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি অথবা গ্যাজেট এর দরকার হবে না। আপনার যদি কোন ক্যামেরা না থেকে থাকে তাহলে মোবাইল দিয়ে অনেক সহজেই চাইলে ভিডিও বানিয়ে আপনি আপনার কাজগুলো করে ফেলতে পারবেন। আর তাহলে এতে করে দেখা যাবে, নতুন যারা রয়েছেন তারা  ইউটিউব ভিডিও বানানোর অনেকটাই আগ্রহ খুঁজে পাবে। 

. ১ জন যদি কোয়ালিটি সম্পন্ন ভিডিও বানাতে পারে তাহলে ইউটিউবসহ যেকোন রকমের মার্কেটপ্লেসের মাধ্যমে অনেক সহজেই কাজ খুঁজে পেয়ে যাবে। আর সেই সময়ে দেখা যাবে তার চাহিদা সকল জায়গাতেই একটা সময়ে আস্তে আস্তে বাড়তে থাকবে।

আমাদের শেষ কথা

তাহলে আমাদের আজকের আর্টিকেল থেকে আপনারা ইউটিউব মার্কেটিং কি, ইউটিউব মার্কেটিং কেন করবেন সেই সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে সকল কিছু জানতে পারলেন। আশা করি যে আমাদের আজকের লেখাটি আপনাদের অনেক ভাল লেগেছে। আর এই রকমের বিভিন্ন মার্কেটিং বিষয়ক তথ্য পেতে চাইলে আমাদের ওয়েবসাইট এর সাথেই থাকুন।

Post a Comment

Previous Post Next Post